অলিগোপলি বাজার কাকে বলে,অলিগােপলি বাজারের বৈশিষ্ট্য

অলিগোপলি বাজার কাকে বলে? | অলিগােপলি বাজারের বৈশিষ্ট্য

অলিগোপলি বাজার কাকে বলে: আজকে আমরা জানবো অলিগোপলি বাজার কাকে বলে? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন। আশা করি আপনারা এই প্রশ্নের উত্তর ভালো ভাবে বুঝতে পারবেন।

অলিগোপলি বাজার কাকে বলে,অলিগােপলি বাজারের বৈশিষ্ট্য

অলিগোপলি বাজার কাকে বলে,অলিগােপলি বাজারের বৈশিষ্ট্য
অলিগোপলি বাজার কাকে বলে

অলিগোপলি বাজার কাকে বলে?

যে বাজারে বিক্রেতা দু’য়ের অধিক কিন্তু খুব বেশি নয়, তাকে অলিগোপলি বাজার বলে।

খেয়াল করলে দেখতে পারবেন বর্তমান বিশ্বে মোটর গাড়ি, ইস্পাত, অ্যালুমিনিয়াম, ওষুধ ও রাসায়নিক শিল্প, বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম এবং কম্পিউটারের ন্যায় বিভিন্ন উৎপন্ন দ্রব্যের ক্ষেত্রে অলিগোপলি বাজার পরিলক্ষিত হয়।

উইলিয়াম ফেলনার “স্বল্পের মধ্যে প্রতিযোগিতা” দ্বারা অলিগোপলিকে আখ্যায়িত করেছে।

অপূর্ণ প্রতিযোগিতামূলক বাজারের একটি বিশেষ রূপ হলো অলিগোপলি। যে অপূর্ণ প্রতিযোগিতার বাজারে মুষ্টিমেয় বিক্রেতা থাকে তাকে অলিগোপলি বাজার বলে। মুষ্টিমেয় বলতে বিক্রেতার সংখ্যা ঠিক কত তার কোনো স্থিরতা নেই। তবে এ সংখ্যা দুয়ের চেয়ে বেশি হতে হবে। এ বাজারে বিক্রেতারা পণ্যের দাম ও যোগান নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।

Also Read: প্রতিবিম্ব কাকে বলে

অলিগোপলি বাজারের সংজ্ঞা দিতে গিয়ে অর্থনীতিবিদ লেফটউইচ (Leftwitch) বলেন, ‘‘সেই ধরনের বাজার ব্যবস্থাকে অলিগোপলি বলা হয় যেখানে কতিপয় প্রতিদ্বন্দ্বী বিক্রেতা বা ফার্ম থাকে এবং প্রত্যেকের কার্যাবলি অপরকে প্রভাবিত করে।”

পূর্ণ অলিগোপলি বাজারে ফার্মগুলোর মধ্যে সমঝোতা থাকলে অস্বাভাবিক মুনাফা এবং সমঝোতা না থাকলে স্বাভাবিক মুনাফা অর্জিত হবে। অন্যদিকে, অপূর্ণ অলিগোপলিতে স্বল্পকালে অস্বাভাবিক মুনাফা এবং দীর্ঘকালে স্বাভাবিক মুনাফা অর্জিত হবে।

অলিগােপলি বাজারের বৈশিষ্ট্য

1। পারস্পরিক নির্ভরশীলতা

অলিগােপলি বাজারের গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হল পারস্পরিক নির্ভরশীল। বাজারে অল্প সংখ্যক ফার্ম বিক্রেতার মধ্যে প্রতিযােগিতা বিদ্যমান থাকায় দাম ও উৎপাদনের পরিমাণ নির্ধারণের ক্ষেত্রে বাজারে ফার্মের পারস্পরিক নির্ভরশীলতা প্রকাশ পায়।

2। দ্রব্যের প্রকৃতি

অলিগোপলি বাজারের আরেকটি বৈশিষ্ট্য হল দ্রব্যের প্রকৃতি। বাজারে দ্রব্যসমূহ সমজাতীয় বা অসমজাতীয় হতে পারে। যদি অসমজাতীয় দ্রব্য নিয়ে অলিগােপলি/ বাজার গড়ে ওঠে তবে তাকে পৃথককৃত অলিগােপলি বলে। অপরদিকে সমজাতীয় দ্রব্যের বাজারকে বিশুদ্ধ অলিগােপলি বলে।

3। বিজ্ঞাপন

অলিগােপলি বাজারের অন্যতম বৈশিষ্ট্য বিক্রেতা তার পণ্যের বিক্রয় বৃদ্ধির ক্ষেত্রে ক্রেতাকে আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে রেডিও, টেলিভিশন, পত্র-পত্রিকা, ফেষ্টুন ইত্যাদির মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার করে এবং প্রচুর অর্থ ব্যয় করে।

4। তীব্র প্রতিযােগিতা

অলিগােপলি বাজারে ফার্মসমূহ একে অন্যের সাথে তীব্র. প্রতিযােগিতায় লিপ্ত হয়। পণ্য বিভাজনের ক্ষেত্রে প্রতিটি ফার্ম বাজার দখলের জন্য মরিয়া হয়ে লাগে।

Also Read: বিভব শক্তি কাকে বলে

5। দলীয় মনােভাব

অলিগােপলি ফার্মসমূহ অনেক সময় মূনাফা সর্বোচ্চ করার জন্য দলীয় ফার্ম বিবেচনা করে। কয়েকটি ফার্ম দলীয়ভাবে উৎপাদন কাজ পরিচালনা করতে পারে। এ দলিয় মনােভাব সমঝােতামূলক অথবা চুক্তিভিক্তিক হতে পারে।

6। গােষ্টিগত আচরণ

অলিগােপলি বাজার অনেক সময় ফার্মের স্বাধীন আচরণের পরিবর্তে গােষ্ঠিগত আচরণ পরিলক্ষিত হয়। কিন্তু এ গােষ্ঠিগত আচরণ বিভিন্ন গ্রুপের মধ্যে একই রকমভাবে লক্ষ্য করা যায়।

7। পণ্যের চাহিদা রেখা অনির্ধারিত

এ বাজারে চাহিদা রেখা অনির্ধারিত থাকে। কিছু সংখ্যক বিক্রেতা থাকায় একজনের দামের পরিবর্তন দ্বারা অন্য বিক্রেতার উপর কি ধরনের প্রভাব ফেলবে তা নিশ্চিত করা যায় না। ফলে চাহিদা রেখার প্রকৃতি অনির্ধারিত হয়ে পড়ে।

8। দামের অনমনীয়তা

অলিগােপলি বাজারে দাম প্রায় অনমনীয় হয়। এ কারণে উৎপাদনকারি খুবই বিচক্ষণ হয়।

9। মুষ্টিমেয় বিক্রেতা

অলিগােপলিতে বিক্রেতার সংখ্যা দুই এর অধিক কিন্তু সীমিত। অর্থাৎ, মুষ্টিমেয় বিক্রেতা থাকে। এই মুষ্টিমেয় কয়েকজন বিক্রেতা দ্রব্যের উৎপাদন, যােগান ও দাম নিয়ন্ত্রণ করে থাকে।

10। দাম-নেতৃত্ব

অলিগােপলি বাজারের একটি প্রধান বৈশিষ্ট্য হল দাম নেতৃত্ব। দাম নেতৃত্ব অলিগােপলিতে একটি বৃহৎ ও প্রাধান্য বিস্তারকারী কার্য যে দামে তার পণ্য বিক্রয় করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে অন্যান্য কার্যগুলাে তাই মেনে নেয়।

অলিগোপলি বাজার কাকে বলে,অলিগােপলি বাজারের বৈশিষ্ট্য

তো আজকে আমরা দেখলাম যে অলিগোপলি বাজার কাকে বলে এবং আরো অনেক বিস্তারিত বিষয় । যদি পোস্ট ভালো লাগে তাহলে অব্যশয়, আমাদের বাকি পোস্ট গুলো ভিসিট করতে ভুলবেন না!

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *