আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে,আপেক্ষিক রোধ উদাহরণ, আপেক্ষিক রোধ একক,আপেক্ষিক রোধ চিহ্ন, আপেক্ষিক রোধ সূত্র, আপেক্ষিক রোধ মাত্রা

আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে? | আপেক্ষিক রোধ উদাহরণ, আপেক্ষিক রোধ একক | আপেক্ষিক রোধ চিহ্ন, আপেক্ষিক রোধ সূত্র, আপেক্ষিক রোধ মাত্রা

আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে: আজকে আমরা জানবো আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন। আশা করি আপনারা এই প্রশ্নের উত্তর ভালো ভাবে বুঝতে পারবেন।

আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে,আপেক্ষিক রোধ উদাহরণ, আপেক্ষিক রোধ একক,আপেক্ষিক রোধ চিহ্ন, আপেক্ষিক রোধ সূত্র, আপেক্ষিক রোধ মাত্রা

আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে,আপেক্ষিক রোধ উদাহরণ, আপেক্ষিক রোধ একক,আপেক্ষিক রোধ চিহ্ন, আপেক্ষিক রোধ সূত্র, আপেক্ষিক রোধ মাত্রা
আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে

আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে?

কোনো পদার্থের 1m দৈর্ঘ্য এবং 1m2 প্রস্থচ্ছেদের ক্ষেত্রফলের কোনো খন্ডের রোধকে ঐ পদার্থের আপেক্ষিক রোধ বলে।

OR: একক ঘনক আকৃতির কোন পরিবাহীর দুই বিপরীত তলের মধ্যবর্তী রোধকে আপেক্ষিক রোধ বলে। ইহাকে ρ দ্বারা প্রকাশ করা হয়।

OR: কোনো নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় এবং নির্দিষ্ট চাপে একক ঘনক আকৃতির কোন পরিবাহীর দুই বিপরীত তলের মধ্যবর্তী রোধকে আপেক্ষিক রোধ বা রোধাঙ্ক বলে।

OR: কোনো নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় এবং নির্দিষ্ট চাপে একক দৈর্ঘ্যের এবং একক প্রস্থচ্ছেদের ক্ষেত্রফলবিশিষ্ট পরিবাহকের রোধকে আপেক্ষিক রোধ বা রোধাঙ্ক বলে।

আপেক্ষিক রোধের একক কি?

  • CGS পদ্ধতিতে আপেক্ষিক রোধের একক হলো ওহম সেন্টিমিটার (Ohm centimeter)।
  • SI পদ্ধতিতে আপেক্ষিক রোধের একক হলো ওহম মিটার (Ohm Meter)।

আপেক্ষিক রোধের উদাহরণ

সহজভাবে বললে, কোনো পদার্থের আপেক্ষিক রোধ বলতে বোঝায় নির্দিষ্ট তাপমাত্রা এবং নির্দিষ্ট চাপে কোনো পদার্থ কতটুকু বিদ্যুৎ পরিবাহতে বাধার সৃষ্টি করে ।

20° C তাপমাত্রায় একটি অত্যন্ত ভাল বৈদ্যুতিক পরিবাহী তামার আপেক্ষিক রোধ, 1.77 × 10 – 8 ওহম-মিটার, বা 1.77 × 10 – 6 ওহম-সেন্টিমিটার।

অন্যদিকে, বৈদ্যুতিক নিরোধকগুলি(electrical insulators) 10 12 থেকে 10 20 ওহম-মিটার আপেক্ষিক রোধ রয়েছে।

অর্থাৎ, যত বেশি আপেক্ষিক রোধ হবে ততবেশি বিদ্যুতের সুপরিবাহী হবেনা। এবং যত কম আপেক্ষিক রোধ থাকবে ততোই বিদ্যুতের সুপরিবাহী পদার্থ হবে।

Also Read: মুসাফির কাকে বলে

আপেক্ষিক রোধের(ρ) সূত্র

একক দৈর্ঘ্য(L) ও একক প্রস্থচ্ছেদ ক্ষেত্রফলবিশিষ্ট(A) কোন একটি পরিবাহী তারের প্রস্থচ্ছেদে অবিলম্বভাবে বিদ্যুৎ প্রবাহে যে বাধা প্রদান করে(R), তাকে তার আপেক্ষিক রোধ বলে। আপেক্ষিক রোধের(p) সূত্র পাওয়া যায় কোনো বর্তনীতে থাকা রোধ থেকে,

  • রোধ R=ρL/A
  • আপেক্ষিক রোধ‌ (ρ)=RA/L

এখানে,
ρ = আপেক্ষিক রোধ
A = পদার্থের প্রস্থচ্ছেদের ক্ষেত্রফল
L = পদার্থের দৈর্ঘ্য
R = রোধ

উচ্চ আপেক্ষিক রোধ পদার্থের তালিকা

  • টাংস্টেন:আপেক্ষিক রোধ(ρ) = 0.055 Ω mm2 /m
  • কার্বন: আপেক্ষিক রোধ(ρ) =1000 থেকে 7000 μ ওহম সেমি
  • ম্যাঙ্গানিন: আপেক্ষিক রোধ(ρ) = 44 μ ওহম সেমি
  • নাইক্রোম: আপেক্ষিক রোধ(ρ) = 1.10 μ ওহম সেমি

Also Read: সাইটোপ্লাজম কাকে বলে

SOME FAQ:

আপেক্ষিক রোধের মাত্রা ?

আপেক্ষিক রোধের মাত্রা হলো ML3T-3I-2

যেসব পদার্থের আপেক্ষিক রোধ বেশি হয় ওই পদার্থ কি সুপরিবাহী হয়না?

যেসব পদার্থের আপেক্ষিক রোধ যত বেশি হয় ততই ওই পর্দাথগুলির রোধ বেশি হয় এবং ততই বিদ্যুৎ পরিবহনের সুপরিবাহী হয়না।

আপেক্ষিক রোধের চিহ্ন ?

সাধারণত গ্রীক অক্ষর (rho) ρ চিহ্ন দ্বারা প্রকাশ করা হয়।

আপেক্ষিক রোধের একক ?

আপেক্ষিক রোধের একক হলো ওহম মিটার (Ω m)।

তো আজকে আমরা দেখলাম যে আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে এবং আরো অনেক বিস্তারিত বিষয় । যদি পোস্ট ভালো লাগে তাহলে অব্যশয়, আমাদের বাকি পোস্ট গুলো ভিসিট করতে ভুলবেন না!

আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে,আপেক্ষিক রোধ উদাহরণ, আপেক্ষিক রোধ একক,আপেক্ষিক রোধ চিহ্ন, আপেক্ষিক রোধ সূত্র, আপেক্ষিক রোধ মাত্রা

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *