পরিবার কাকে বলে,পরিবারের বৈশিষ্ট্য,রিবার কত প্রকার,পরিবার কাকে বলে Class 6,পরিবার কাকে বলে Class 7

পরিবার কাকে বলে? বিস্তারিত.. | পরিবারের বৈশিষ্ট্য | পরিবার কত প্রকার?

পরিবার কাকে বলে: আজকে আমরা জানবো পরিবার কাকে বলে? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন। আশা করি আপনারা এই প্রশ্নের উত্তর ভালো ভাবে বুঝতে পারবেন।

পরিবার কাকে বলে.পরিবারের বৈশিষ্ট্য.রিবার কত প্রকার.পরিবার কাকে বলে Class 6.পরিবার কাকে বলে Class 7

পরিবার কাকে বলে,পরিবারের বৈশিষ্ট্য,রিবার কত প্রকার,পরিবার কাকে বলে Class 6,পরিবার কাকে বলে Class 7
পরিবার কাকে বলে

পরিবার কাকে বলে?

বৈবাহিক বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার মাধ্যমে সন্তান জন্ম দিয়ে লালন-পালন করার পরিকল্পনা যেখানে গঠন করা হয় তাকে পরিবার বলা হয়।

encyclopedia americana গ্রন্থে বলা হয়েছে, পরিবার পথটি সাধারণত কিছু ব্যক্তির সমষ্টিকে বোঝায়, যারা জন্ম এবং বিবাহসূত্রে একইক আবাসগৃহে বসবাস করে। সাধারণত দেখা যায়, পরিবার পথটি পূর্বপুরুষের ধারণা পর্যন্ত গ্রহণ করে।

সমাজবিজ্ঞানী Nimkoff বলেছেন, “Family is a union of husband & wife with or without children.”

কিংসলি ডেভিস বলেছেন, “পরিবার হচ্ছে এমন কতগুলো ব্যক্তির দ্বারা গঠিত গোষ্ঠী, যারা পরস্পর রক্তের সম্পর্কে আবদ্ধ এবং সে সূত্রে তারা একে অন্যের আত্মীয়।”

Also Read: মার্কেটিং কাকে বলে

পরিবার কত প্রকার?

পরিবার প্রধানত ৬ প্রকার:

  1. স্বামী-স্ত্রীর সংখ্যার ভিত্তিতে পরিবার
  2. কর্তৃত্বের ভিত্তিতে পরিবার
  3. আকারের ভিত্তিতে পরিবার
  4. পাত্র-পাত্রী নির্বাচনের ভিত্তিতে পরিবার
  5. বংশ মর্যাদা ও সম্পত্তির উত্তরাধিকারের ভিত্তিতে পরিবার
  6. বিবাহোত্তর স্বামী-স্ত্রীর বসবাসের ভিত্তিতে পরিবার

পরিবারের বৈশিষ্ট্য

আসুন একটি আদর্শ পরিবারের বৈশিষ্ট্য গুলো জেনে নেই:

১. পরিবারকে সময় দেওয়া:

পরিবার হল একত্রে সবার বসবাস আর আপনি আপনার স্ত্রী আপনার মা- বাবা আপনার সন্তান কে যদি সঠিকভাবে সময় না দেন তাহলে আপনাদের মধ্যে পারিবারিক বন্ধন সৃষ্টি হবে না। তাই আদর্শ পরিবার গড়ে তুলতে অবশ্যই পরিবারকে পর্যাপ্ত সময় দিতে হবে।

২. শৃঙ্খলা:

সমাজে একটি আদর্শ এবং সুখী পরিবার হতে হলে অবশ্যই পরিবারের সবাইকে শৃংখল হতে হবে। ছোট থেকেই আপনার পরিবারের সবাইকে শৃঙ্খলা গুলো মানিয়ে নিতে হবে আর এটি পরিবারিক শিক্ষার অন্যতম একটি ধাপ।

৩. ক্ষমা পূর্ণ মনোভাব:

একটি সুখী পরিবার তখনই তৈরি হয় যখন পরিবারের সবাই সবার প্রতি ক্ষমা পূর্ণ মনোভাব রাখে। একসাথে থাকলে অবশ্যই মনোমালিন্য হবে আর সেটি কি ভুলে আমাদের জীবন এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

৪. নিরাপত্তা:

পরিবার কে সবাই সবচাইতে নিরাপদ স্থান মনে করে কিন্তু বর্তমানে পরিবারের কিছু কুরুচিপূর্ণ মানুষের কারণে পরিবারও আজকাল নিরাপদ নয়। তাই সব সময় সতর্ক থাকুন চোখ কান খোলা রাখুন।

৫. বিশ্বাস:

কথায় আছে বিশ্বাসের ওপর পুরো দুনিয়ার টিকে রয়েছে আর পরিবার কে টিকিয়ে রাখতে হলেও বিশ্বাস সূত্রের ব্যবহার অবশ্যই আপনাকে করতে হবে।

পরিবার কাকে বলে Class 6

পরিবার প্রায়শ সন্তানসহ বা সন্তানবিহীন এক বা একাধিক দম্পতির ছোট সংসার নিয়ে গঠিত। এর আর্থিক ভিত্তি রয়েছে। এই ভিত্তিকে কেন্দ্র করে আত্মীয়, সামাজিক সম্পর্ক ও প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠে এবং ঐক্যবদ্ধ কাজের মাধ্যমে তা রূপায়িত হয়। পরিবারের বিকাশে সন্ধানযোগ্য বংশগত সম্পর্ক সাধারণত জ্ঞাতি সম্পর্কের চেয়ে অগ্রাধিকার পায়।

পরিবার কাকে বলে Class 7

বিশ্বের পরিবারও রক্তসম্পর্ককে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে। বিশ্বের যেকোন পরিবারের অধিকাংশই স্বামী-স্ত্রী ও তাদের অবিবাহিত ছেলেমেয়েদের নিয়ে গঠিত। স্বামী ও স্ত্রী, অথবা বিবাহিত জীবনের এই দুই অংশীদারের যে-কেউ একজন সংসারের নিত্যনৈমিত্তিক কাজ-কর্মের চালক।

পরিবার প্রধানের দিক থেকে বংশানুক্রমিক সদস্যদের মধ্যে দাদা, দাদি, বাবা, মা, স্ত্রী, ছেলে, মেয়ে, ছেলের বউ, নাতি, নাত-বউ এবং নাতনি অন্তর্ভুক্ত। অনুরূপভাবে, জ্ঞাতি সদস্যদের মধ্যে রয়েছে চাচা ও চাচী, চাচার ছেলে ও মেয়ে, ভাই ও ভাইয়ের স্ত্রী, ভাইয়ের ছেলেমেয়ে এবং এই ধারাবাহিকতায় অন্যান্যরা।

বংশীয় ও জ্ঞাতিগত উভয় শ্রেণীতে পরিবার প্রধানের সকল সন্ধানযোগ্য পূর্ব-পুরুষ ও উত্তরপুরুষ বিগত দিনের অব্যাহত সদস্যতা এবং ঘনিষ্ঠতার পারস্পরিক অনুভবের ভিত্তিতে পরিবারের সদস্য হওয়ার স্বীকৃতি লাভ করতে পারে।

তো আজকে আমরা দেখলাম যে পরিবার কাকে বলে এবং আরো অনেক বিস্তারিত বিষয় । যদি পোস্ট ভালো লাগে তাহলে অব্যশয়, আমাদের বাকি পোস্ট গুলো ভিসিট করতে ভুলবেন না!

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *