প্রেম আর ভালোবাসার মধ্যে পার্থক্য কি?

প্রেম আর ভালোবাসার মধ্যে পার্থক্য কি: আজকে আমরা জানবো প্রেম আর ভালোবাসার মধ্যে পার্থক্য কি? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন। আশা করি আপনারা এই প্রশ্নের উত্তর ভালো ভাবে বুঝতে পারবেন।

প্রেম আর ভালোবাসার মধ্যে পার্থক্য কি?

প্রেমভালোবাসা
কারো প্রতি প্রেমে পড়া বলতে বোঝায়, কারো মায়ায় পড়া, কাউকে নিজের করে কাছে পাওয়ার অনুভূতি এবং তাকে নিজের কাছে পাওয়ার এক আকাঙ্ক্ষা তৈরি হওয়া। অন্যদিকে কাউকে ভালোবাসা মানে শারীরিক সম্পর্ক উপেক্ষা করে কাছে পাওয়ার অনুভূতি।
প্রেম আত্মহিত-কেন্দ্রিক। অন্যদিকে ভালোবাসা পরহিত-কেন্দ্রিক।
প্রেম ভালোবাসার একটা রুপ।অন্যদিকে ভালোবাসা স্বতন্ত্র।
 দুপক্ষের সম্মতিতে প্রেম হয়।অন্যদিকে ভালোবাসায় অপরপক্ষের সম্মতি মুখ্য নয়।
প্রেমের ক্ষেত্র সংকীর্ণ। অন্যদিকে ভালোবাসার ক্ষেত্র ব্যাপক ও সার্বজনীন।
ভালোবাসা হয় এক পক্ষ থেকে আর প্রেম হয় উভয় পক্ষ থেকে।অন্যদিকে ভালবাসার জন্য প্রেম আবশ্যক নয় কিন্তু প্রেমের জন্য ভালবাসা অপরিহার্য ।
 প্রেম হল আত্মসুখের জন্য প্রেমাষ্পদকে আপন করে নেওয়ার প্রবল আকাঙ্ক্ষা। অন্যদিকে ভালবাসা হল প্রেমাষ্পদের সুখের জন্য নিজেকে বিলীন করে দেওয়া
ভালবাসার জন্য প্রেম আবশ্যক নয়কিন্তু প্রেমের জন্য ভালবাসা অপরিহার্য
প্রেম হল আত্মসুখের জন্য প্রেমাষ্পদকে আপন করে নেওয়ার প্রবল আকাঙ্খাভালবাসা হল প্রেমাষ্পদের সুখের জন্য নিজেকে বিলীন করে দেওয়া

প্রেম ও ভালোবাসা শব্দদুটোর মধ্যে আসলে পার্থক্য কোথায়?

প্রেম আর ভালোবাসায় তেমন একটা তফাৎ নেই। শব্দদুটো ভীষণ নিকটবর্তী, কিন্তু তবুও একটা পার্থক্যতো আছেই।

পৃথিবীতে ভালোবাসার কোন সংজ্ঞা নাই। ভা লো বা সা এই চারটি অক্ষরের শব্দটি ইট পাথরের তৈরী কোন ভাল বাসা/বাড়ি নয়। এটি দেখা বা ছোঁয়া যায় না অনুভব করে নিতে হয়। ভালোবাসা টিকে থাকে আস্থা ও বিশ্বাসের উপর। ভালোবাসাটা হচ্ছে মানুষের মনের আবেগ অনুভূতির একটা স্বাভাবিক রূপ। মানুষের প্রতি মানুষের ভালোলাগা, শ্রদ্ধাবোধ, মমতা ও টান থেকেই মূলত ভালোবাসার উৎপত্তি।

প্রেম ভালোবাসার একটা রুপ। কিন্তু ভালোবাসা সতন্ত্র। প্রেমের ক্ষেত্র নিয়ন্ত্রিত ও সংকীর্ণ, আর ভালোবাসার ক্ষেত্র ব্যাপক ও সর্বজনীন। ভালোবাসা হয় এক পক্ষ থেকে আর প্রেম হয় উভয় পক্ষ থেকে, ভালবাসা্র জন্য প্রেম আবশ্যক নয় কিন্তু প্রেমের জন্য ভালবাসা অপরিহার্য। দুপক্ষের সম্মতিতে প্রেম হয়, আর ভালোবাসায় অপরপক্ষের সম্মতি মুখ্য নয়। প্রেম ব্যক্তিকেন্দ্রিক, ভালোবাসা এমন কোন সিলেবাস মানেনা, ব্যক্তি-বস্তু, সবকিছুই ভালোবাসার আওতায় পড়ে।

ভালোবাসাটা মানুষের আবেগ অনুভূতির একটা স্বাভাবিক রূপ। মানুষের প্রতি মানুষের ভালোলাগা, শ্রদ্ধাবোধ থেকেই মূলত ভালোবাসার উৎপত্তি।

অবশ্য ভালোবাসার সংজ্ঞাটা আরো ব্যাপক, এটা যে কোন ঘটনা, ব্যক্তি, প্রাণী, স্মৃতি, বিষয় ইত্যাদির ব্যাপারেও হতে পারে। বিশেষ কোন “সাবজেক্ট”-এর ব্যাপারে মানুষের বিশেষ অনুভূতির নামই ভালোবাসা। সবচেয়ে বড় যে পার্থক্য সেটা হলো, ভালোবাসা সাধারণত এক-তরফা হয়, তবে দু’তরফাও হতে পারে।

ভালোবাসার অনেক রং, রূপ. গন্ধ, বৈশিষ্ট রয়েছে। ভালবাসা বিভিন্ন বিভিন্ন ক্ষেত্রে তৈরী হয়। মায়ের সাথে ছেলে ভালোবাসা, বাবার সাথে মেয়ের ভালোবাসা, ভাইয়ের সাথে বোনের ভালোবাসা, প্রাপ্ত বয়স্ক কোন ছেলে সাথে মেয়ের ভালোবাসা ইত্যাদি।

যেমন ধরুন আপনি আকাশ ভালোবাসেন, কিন্তু আকাশতো আপনাকে ভালোবাসতে পারেনা, পারলেও শুধু আপনাকে নির্দেশ করে সে(আকাশ) তার অনুভূতিকে প্রকাশ করতে পারছেনা বা পারেনা। প্রেমটা অবশ্যই দু’পক্ষের হতে হবে। শুধু এক পক্ষ থেকে প্রেম হয়না। আমার দৃষ্টিতে প্রেমের গভীরতা / আবেদন ভালোবাসা থেকেও অনেক বেশী। রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়া একজন মানুষের প্রতি আপনার ভালোবাসা থাকতে পারে, তবে সেটাকে প্রেম বলা যাবে না। প্রেমটা তখনই হবে যখন বিষয়টা দু’দিক থেকেই হবে। তবে অবশ্যই সেটা ভালোবাসা থেকেও অনেক গভীর হতে হবে।

যাই-ই হোকনা কেন প্রেম-ভালোবাসা একে অন্যের সমার্থক ও পরিপূরক, এর অসীম ক্ষমতা। করো প্রতি তীব্র আকর্ষণবোধ বা আসক্তি। হতে পারে মন ও মস্তিস্কের কোনা সাজানো কারসাজি। ভালোবাসার মানুষের জন্য প্রাণ পর্যন্ত মানুষ বিসর্জন দেয়।

তো আজকে আমরা দেখলাম যে প্রেম আর ভালোবাসার মধ্যে পার্থক্য কি এবং আরো অনেক বিস্তারিত বিষয় । যদি পোস্ট ভালো লাগে তাহলে অব্যশয়, আমাদের বাকি পোস্ট গুলো ভিসিট করতে ভুলবেন না!

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *