মূলদ সংখ্যা কাকে বলে?,মুলদ চেনার উপায়,মূলদ সংখ্যার উদাহরণ

মূলদ সংখ্যা কাকে বলে? | মুলদ চেনার উপায় | মূলদ সংখ্যার উদাহরণ

মূলদ সংখ্যা কাকে বলে: আজকে আমরা জানবো মূলদ সংখ্যা কাকে বলে? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন। আশা করি আপনারা এই প্রশ্নের উত্তর ভালো ভাবে বুঝতে পারবেন।

মূলদ সংখ্যা কাকে বলে.মুলদ চেনার উপায়.মূলদ সংখ্যার উদাহরণ

মূলদ সংখ্যা কাকে বলে?,মুলদ চেনার উপায়,মূলদ সংখ্যার উদাহরণ
মূলদ সংখ্যা কাকে বলে

মূলদ সংখ্যা কাকে বলে?

যেসব সংখ্যাকে p/q আকারে প্রকাশ করা যায়, যেখানে p এবং q পূর্ণসংখ্যা এবং q শূন্য (0) নয়, ওই সংখ্যাকে মূলদ সংখ্যা বলা হয়।

যে সকল সংখ্যাকে a/b আকারে লেখা যায়,(যেখানে a এবং b পূূর্ণ সংখ্যা) তাকে মূলদ সংখ্যা বলে ।

মুলদ চেনার উপায়

  1. প্রত্যেক পূর্ণসংখ্যা একটি মূলদ সংখ্যা। যেমন ৫ একটি মূলদ সংখ্যা, কারণ ৫ কে ভগ্নাংশ আকারে লেখা যাবে ৫/১, আমরা এটাও জানি সকল পূর্ণ সংখ্যার নিচে ১ থাকে।
  2. শূন্য, স্বাভাবিক সংখ্যা, প্রকৃত ও অপ্রকৃত ভগ্নাংশ সকলেই মূলদ সংখ্যা।
  3. যদি দশমিকের পরের ঘরগুলো সসীম হয় অর্থাৎগণনা করা যায়, তবে সংখ্যাটি হবে মূলদ সংখ্যা। যেমন:- ৩.৫৬ এবং ৫৬৯.৩৫ ইত্যাদি।
  4. যে কোন পূর্ণবর্গ সংখ্যার বর্গমূল হলো মূলদ সংখ্যা। যেমন:- রুট ৩৬ এবং রুট ৪৯
  5. সকল পৌণপৌনিক সংখ্যা মূলদ সংখ্যা।
  6. দশমিকের পরের ঘরগুলো যদি অভিন্ন আকারে অসীম হয় অর্থাৎ দশমিকের পরের সবগুলো সংখ্যা একই হলে তবে সংখ্যাটি মূলদ। যেমন:- ৫.৪৪৪…

Also Read: চলক কাকে বলে

মূলদ সংখ্যার উদাহরণ

  • 1/2
  • -6/8
  • -0.7 বা -7/10
  • 0.3 বা 3/10
  • 0.141414… বা 14/99

মূলদ সংখ্যা বের করার নিয়ম

প্রত্যেক পূর্ণ সংখ্যাই এক একটি মূলদ সংখ্যা। অর্থাৎ, প্রত্যেক পূর্ণ সংখ্যাকে ভগ্নাংশ করার পর হাতে বা নিচে ১ থাকবে বা থাকতে হবে। তবেই তা মূলদ সংখ্যা হবে। মূলদ সংখ্যা বের করার সময় অবশ্যই তা মাথায় রাখতে হবে। যেমনঃ ৫ একটি মূলদ সংখ্যা। কারণ ৫ কে ভগ্নাংশ আকারে লিখা যায় ৫/১ এভাবে।

অনেক সময় দশমিক সংখ্যার পরও সংখ্যা গুলো সসীম হয়। অর্থাৎ, সেগুলো গণনা করা যায় বা যাবে। যেমনঃ ৫৬৯.৩৫। এটি একটি মূলদ সংখ্যা। মূলদ সংখ্যা গুলো বের করার সময় সসীম সংখ্যা গুলো খেয়াল রাখা হয়।

পূর্ণ সংখ্যার বর্গমূল করেও আমরা মূলদ সংখ্যা বের করতে পারি। যেমনঃ √ ৪৯।

অনেক সময় আমরা আবার দশমিকের পরের সংখ্যা গণনা যে করি সেগুলো দেখা যায় একই হয়ে থাকে। যেমনঃ ৩.৪৪৪৪….. ইত্যাদি। এগুলোও একটি মূলদ সংখ্যা।

SOME FAQ:

0 একটি মূলদ সংখ্যা?

হ্যাঁ, 0 একটি মূলদ সংখ্যা কারণ এটিকে 0/1, 0/-2 ইত্যাদি পূর্ণসংখ্যার ভগ্নাংশ হিসাবে লেখা যেতে পারে।

“০” (শূন্য) কেন মূলদ সংখ্যা?

“0” (শূণ্য) কে চাইলেই আমরা 0/1 -এইভাবে ভাগ্নাংশে লিখতে পারি। যেমন 0/1 = 0। এখানে দেখুন 1 একটি স্বাভাবিক সংখ্যা এবং সেটি জিরো (zero) -এর সমান নয়, জিরোর থেকে বড়ো।তাই নিঃসন্দেহেই বলা যায়, শুন্য একটি মূলদ সংখ্যা।

তো আজকে আমরা দেখলাম যে মূলদ সংখ্যা কাকে বলে এবং আরো অনেক বিস্তারিত বিষয় । যদি পোস্ট ভালো লাগে তাহলে অব্যশয়, আমাদের বাকি পোস্ট গুলো ভিসিট করতে ভুলবেন না!

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *