যাকাত কাকে বলে? বিস্তারিত…

যাকাত কাকে বলে: আজকে আমরা জানবো যাকাত কাকে বলে? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন। আশা করি আপনারা এই প্রশ্নের উত্তর ভালো ভাবে বুঝতে পারবেন।

যাকাত কাকে বলে
যাকাত কাকে বলে

যাকাত কাকে বলে?

যাকাত তাকে বলা হয়ে থাকে যা প্রদান করলে মন বা আত্মা পবিত্রতা লাভ করে, এবং সম্পদের বৃদ্ধি ঘটে এবং সম্পদ পরিচ্ছন্ন হয়।

যাকাত ফরজ হওয়ার শর্তসমূহ

  • নেসাব পরিমাণ মালের মালিক হওয়া। অর্থাৎ সাড়ে সাত তোলা স্বর্ণ, বা সাড়ে বায়ান্ন তোলা রুপা,কিংবা সমপরিমাণ মূল্যের নগদ টাকা বা ব্যবসার মালের মালিক হওয়া।
  • মুসলমান হওয়া। কাফেরের উপর যাকাত ফরজ নয়।
  • মাল বর্ধনশীল হওয়া। যাকাতের ফজিলত, আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন, ‘তোমরা যা কিছু (আল্লাহর রাস্তায়) ব্যয় কর তিনি তার বিনিময় দান করবেন। আর তিনিই উত্তম রিজিকদাতা। (সুরা সাবা,আয়াত:৩৯)
  • বালেগ হওয়া। নাবালেগের উপর যাকাত ফরজ নয়।
  • জ্ঞানী ও বিবেক সম্পন্ন হওয়া। সর্বদা যে পাগল থাকে তার নেসাব পরিমাণ মাল থাকলেও তার উপর যাকাত ফরজ নয়।
  • স্বাধীন বা মুক্ত হওয়া। দাস-দাসীর উপর যাকাত ফরজ নয়।
  • মালের উপর পূর্ণ মালিকানা থাকা। অসম্পূর্ণ মালিকানার উপর যাকাত ফরজ হয় না।
  • নেসাব পরিমাণ মাল নিত্য প্রয়োজনীয় সম্পদের অতিরিক্ত হওয়া।
  • নেসাব পরিমাণ মালের উপর এক বছর অতিবাহিত হওয়া।

তো আজকে আমরা দেখলাম যে যাকাত কাকে বলে এবং আরো অনেক বিস্তারিত বিষয় । যদি পোস্ট ভালো লাগে তাহলে অব্যশয়, আমাদের বাকি পোস্ট গুলো ভিসিট করতে ভুলবেন না!

Leave a Comment