সাইটোপ্লাজম কাকে বলে,Cytoplasm Kake Bole,সাইটোপ্লাজম এর কাজ,সাইটোপ্লাজম এর বৈশিষ্ট্য,সাইটোপ্লাজম

সাইটোপ্লাজম কাকে বলে | Cytoplasm Kake Bole | সাইটোপ্লাজম এর কাজ | সাইটোপ্লাজম এর বৈশিষ্ট্য

সাইটোপ্লাজম কাকে বলে: আজকে আমরা জানবো সাইটোপ্লাজম কাকে বলে? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন। আশা করি আপনারা এই প্রশ্নের উত্তর ভালো ভাবে বুঝতে পারবেন।

সাইটোপ্লাজম কাকে বলে,Cytoplasm Kake Bole,সাইটোপ্লাজম এর কাজ,সাইটোপ্লাজম এর বৈশিষ্ট্য,সাইটোপ্লাজম

সাইটোপ্লাজম কাকে বলে,Cytoplasm Kake Bole,সাইটোপ্লাজম এর কাজ,সাইটোপ্লাজম এর বৈশিষ্ট্য,সাইটোপ্লাজম
সাইটোপ্লাজম কাকে বলে

সাইটোপ্লাজম কাকে বলে?

প্রোটোপ্লাজম থেকে নিউক্লিয়াস নিউক্লিয়াসকে বাদ দিলে, যে অর্থ অর্ধ তরল অংশটি থাকে তাকে সাইটোপ্লাজম বলে। এর প্রধান কাজ কোষের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অঙ্গানু গুলোকে ধারণ করা। কিছু শরীর বৃত্তীয় কাজ এখানে সম্পন্ন হয়। যেমন সালোকসংশ্লেষণ। সাইটোপ্লাজম সাইটোপ্লাজমে দেখা যায় এমন অঙ্গানু হলঃ প্লাস্টিড, কোষগহ্বর, মাইট্রোকন্ডিয়া।

OR: সাইটোপ্লাজম অর্ধতরল, দানাদার, অর্ধস্বচ্ছ, সমধর্মী, কলয়ডাল তরল পদার্থ, জৈব ও অজৈব পদার্থ, পানি, বিভিন্ন এনজাইম ও অ্যাসিড নিয়ে গঠিত। সাইটোপ্লাজমীয় মাতৃকার অপেক্ষাকৃত ঘন, কম দানাদার বহিঃস্থ শক্ত অঞ্চলকে এক্টোপ্লাজম এবং কেন্দ্রস্থ অপেক্ষাকৃত কম ঘন অঞ্চলকে এন্ডোপ্লাজম বলে। সাইটোপ্লাজমের আপেক্ষিক গুরুত্ব পানি অপেক্ষা বেশি।

Also Read: ভিনেগার কাকে বলে

cytoplasm kake bole (cytoplasm definition biology)

কোষের প্রোটোপ্লাজমের নিউক্লিয়াসের বাইরে জেলির মতো অংশকে সাইটোপ্লাজম বলে।

সর্বপ্রথম ১৮৬২ সালে বিজ্ঞানী রুডলফ ভন কলিকার সাইটোপ্লাজম শব্দটি ব্যবহার করেন |কোষের অধিকাংশ কার্যাবলী সাইটোপ্লাজম এই সংগঠিত হয়।

সাইটোপ্লাজম এর কাজ

সাইটোপ্লাজম এর বিভিন্ন কাজ গুলি নীচে দেওয়া হল –

  1. সাইটোপ্লাজম কোষের গঠন বজায় রাখতে সাহায্য করে
  2. প্রোটোজোয়ার ( অ্যামিবা) গমনে সাহায্য করে।
  3. বিভিন্ন কোষীয় অঙ্গানুর কাজে সমন্বয় সাধন ঘটায়
  4. বিভিন্ন শারীরবৃত্তীয় বিক্রিয়া বা বিপাক সাইটোপ্লাজমে ঘটে।
  5. কোষীয় অঙ্গাণু বা ক্ষুদ্রাঙ্গ ধারণ করাই সাইটোপ্লাজমের প্রধান কাজ।
  6. এটি জৈবিক ও বিপাকীয় কাজ পরিচালনা করে।
  7. রেচনদ্রব্যসহ বিভিন্ন বর্জ্য পদার্থ নিষ্কাশন করে।
  8. কোষের অম্লত্ব ও ক্ষারকত্ব নিয়ন্ত্রণ করে।
  9. উত্তেজনায় সাড়া দিয়ে জীবের বৈশিষ্ট্য প্রদর্শন করে।
  10. পানি পরিশোষণে সহায়তা করে।
  11. সাইক্লোসিস বা আবর্তনের মাধ্যমে অঙ্গাণুসমূহের নড়াচড়ায় সহায়তা করে।

Also Read: নৈতিকতা কাকে বলে

সাইটোপ্লাজম এর বৈশিষ্ট্য

সাইটোপ্লাজমের বৈশিষ্ট্য সাইটোপ্লাজম অর্ধতরল, দানাদার, অর্ধস্বচ্ছ, সমধর্মী, কলয়ডাল তরল পদার্থ, জৈব ও অজৈব পদার্থ, পানি, বিভিন্ন এনজাইম ও অ্যাসিড নিয়ে গঠিত। সাইটোপ্লাজমীয় মাতৃকার অপেক্ষাকৃত ঘন, কম দানাদার বহিঃস্থ শক্ত অঞ্চলকে এক্টোপ্লাজম এবং কেন্দ্রস্থ অপেক্ষাকৃত কম ঘন অঞ্চলকে এন্ডোপ্লাজম বলে। সাইটোপ্লাজমের অধিকাংশয় জল এবং বর্ণহীন।

SOME FAQ:

সাইটোপ্লাজম এর বিভাজন কে কি বলা হয় ?

সাইটোপ্লাজম এর বিভাজন কে সাইটোকাইনেসিস বলা হয়।

সাইটোসল কি ?

সাইটোপ্লাজমের সকল অঙ্গাণু সরিয়ে নিলে যে জেলির মতো থকথকে তরল পাওয়া যায়, তাই হল সাইটোসল। অথবা সাইটোসল হল একপ্রকারের তরল পদার্থ যা কোষের মধ্যে থাকে।

তো আজকে আমরা দেখলাম যে সাইটোপ্লাজম কাকে বলে এবং আরো অনেক বিস্তারিত বিষয় । যদি পোস্ট ভালো লাগে তাহলে অব্যশয়, আমাদের বাকি পোস্ট গুলো ভিসিট করতে ভুলবেন না!

সাইটোপ্লাজম কাকে বলে,Cytoplasm Kake Bole,সাইটোপ্লাজম এর কাজ,সাইটোপ্লাজম এর বৈশিষ্ট্য,সাইটোপ্লাজম

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *